পাকিস্তানকে উড়িয়ে দিল ভারত

বাঙলার জাগরণ ডেস্ক :: ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে উত্তেজনা ক্রমশ কমে আসছে। পাকিস্তানের এমন ব্যাটিং যদি আরো দেখা যায়, তাহলে নিশ্চিতভাবেই ‘টিআরপি’ কমে আসবে এই ম্যাচের। ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ের আগে হংকংয়ের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ভারতীয় বোলারদের সামলে গড়েছিলেন ১৭৪ রানের জুটি। অথচ সেই একই বোলিং আক্রমণের সামনে পাকিস্তান অল আউট ১৬২ রানে! ওই রান ২৯ ওভারেই মাত্র দুই উইকেট হারিয়ে টপকে গিয়ে ৮ উইকেটের বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে রোহিত শর্মার দল।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হারের পর এশিয়া কাপের এই ম্যাচেই ফের দেখা হয়েছে দুই প্রতিবেশীর। ওয়াঘা সীমান্তের দুই পাশের বাসিন্দারা ক্রিকেট মাঠে মুখোমুখি হলেই তাতে লড়াইয়ের একটা উত্তাপ যোগ হয়ে যায়। কিন্তু পাকিস্তান যে ব্যাটিংটা করল, তাতে ফুটো হয়ে চুপসে গেল জমজমাট দ্বৈরথ দেখার আশার বেলুন।

টস জিতে ব্যাট করা পাকিস্তান উইকেট হারিয়েছে নিয়মিত বিরতিতে। নিজের পর পর দুই ওভারে ভুবনেশ্বর ফিরিয়ে দেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার ইমাম উল হক ও ফখর জামানকে। ৩ রানে ২ উইকেট হারানো পাকিস্তান আর পারেনি ঘুরে দাঁড়াতে। ১০০ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা পাকিস্তান শেষ ৫ উইকেটে যোগ করে আর মাত্র ৬২ রান। সেটাও শেষ দিকে ফাহিম আশরাফ (২১) আর মোহাম্মদ আমির (১৮*) মিলে ৩৭ রানের একটা জুটি গড়ায় দেড় শ ছাড়ায় তাদের স্কোর। হংকংয়ের বিপক্ষে ভুবনেশ্বর কুমার ১০ ওভারে দিয়েছিলেন ৫০ রান, পাননি কোনো উইকেট। সেই ভুবনেশ্বরই রীতিমতো ‘আনপ্লেয়েবল’, ৭ ওভারে ১ মেডেনসহ ১৫ রানে ৩ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের টপ অর্ডার ধসিয়ে দিয়েছেন। একাদশে ফিরেই জোড়া শিকার জসপ্রিত বুমরাহর।

১৬৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে রোহিত শর্মা এবং শিখর ধাওয়ান যোগ করেন ৮৬ রান। ৩৯ বলে ৫২ রান করে ফেরেন রোহিত আর হাফসেঞ্চুরি থেকে ৪ রান দূরে থাকতে আউট হয়েছেন ধাওয়ান। ১৬ রানের ব্যবধানে এ দুজন ফিরে এলেও আমবাতি রাইডু (৩১*) ও দীনেশ কার্তিকের (৩১*) অবিচ্ছিন্ন তৃতীয় উইকেটে ৬০ রানের জুটিতে বাকী পথটুকু পাড়ি দিতে কোনো সমস্যাই হয়নি ভারতের।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.